হেনস্তার শিকার আগের দুই ছাত্রী উপযুক্ত বিচার।

Date: 2022-07-25
news-banner
গত বছরের ১৯ সেপ্টেম্বর দুই ছাত্রী চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির কাছে হেনস্তার অভিযোগ দেন। পরে অভিযোগটি যৌন হয়রানি ও নিপীড়ন নিরোধ কেন্দ্রে পাঠানো হয়। ওই ঘটনার বিচার এখনো শেষ হয়নি।
হেনস্তার শিকার হওয়া ওই তুই নারীর মধ্যে একজনকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন বারবার জিজ্ঞাসাবাদের শেষ হল এখনো পর্যন্ত সঠিক বিচার পাননি তারা।ঘটনার বিচার না করে প্রক্টর রবিউল হাসান ভূঁইয়া উল্টো গণমাধ্যমে তাঁদের নিয়ে মিথ্যাচার করেছেন। প্রক্টর গণমাধ্যমে বলেন, ঘটনার পর তাঁরা (দুই ছাত্রী) অভিযুক্ত চারজনকে মাফ করে দিয়েছেন। আদতে এ ধরনের কিছু হয়নি। তাঁরা কাউকে মাফ করেননি। জানতে চাইলে রবিউল হাসান ভূঁইয়া গতকাল দুপুরে তাঁর অভিযোগ কমিটির এক সদস্য মাফ করে দেওয়ার বিষয়টি তাঁকে জানিয়েছিলেন। এ কারণে তিনি গণমাধ্যমে এ কথা বলেন। প্রতিনিয়তই বারবার দেখা যায় যে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীদের প্রতিনিয়তই ব্যবসা করা হয় এ ধরনের হাত থেকে অনেকে রেহাই পায় না এবং অনেকেই মুখ মুছে সহ্য করে নেয়। এ ধরনের ঘটনা থেকে অনেকের ভিতরেই থেকে যায় ভয়ংকর ভয়। ঘটনা থেকে অনেকেই প্রতিবাদ জানালেও সুষ্ঠু বিচার পাই না এ ঘটনা তে বড় বড় ছেলেদের হাত থাকার কারণে ঘটনা সুষ্ঠু বিচার হয় না বলে জানান অভিযোগকারীরা আমরা সকলে মিলেই এ ধরনের ঘটনা যারা করে তাদেরকে বোঝাতে শাস্তি দেওয়ার আইন করা দরকার।

Leave Your Comments